Thursday June 20, 2019
ঢাকার খবর
28 February 2019, Thursday
ভোটাররা নির্বাচন থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন:শাফিন
ফাস্টনিউজ,ঢাকা:ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র নির্বাচনে ভোটারদের উপস্থিতি লক্ষণীয়ভাবে কম এমন মন্তব্য করে জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী শাফিন আহমেদ বলেছেন, ‘এ দেশের ভোটাররা নির্বাচন থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন।’

বৃহস্পতিবার দুপুরে গুলশান-২ এ অবস্থিত মানারাত ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে ভোট প্রদান করে তিনি সাংবাদিকদের একথা বলেন।

ভোটের পরিবেশ সম্পর্কে জানতে চাইলে শাফিন আহমেদ বলেন, ‘ভোটারদের আগ্রহ কম। এ দেশে নির্বাচনে অনেক অনিয়ম হয়েছে। গত কয়েকটা নির্বাচনে এত বেশি অনিয়ম হয়েছে আমার মনে হয় ভোটাররা নির্বাচন থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন। কারণ তারা মনে করেন তাদের ভোটের কোনো দাম নেই।’

তিনি বলেন, মানারাত স্কুলে দুপুর ১২টা ২০ মিনিটে আমি আমার ভোট দিয়েছি। এর আগে সকালে বেশ কয়েকটি কেন্দ্র ঘুরে এসেছি। এখানকার (মানারাত ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ ভোটকেন্দ্র) পরিবেশ বেশ ভালো দেখলাম। কিন্তু সকালে বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে অনিয়ম দেখেছি। বাকি দিনটা আমি আরও দেখতে চাই, আরও কেন্দ্রে যাব। বাকি কেন্দ্রগুলো দেখে দিনের শেষে আমি সঠিক একটি মতামত দিতে পারবো।

কোন কেন্দ্রে কী ধরনের অনিয়ম দেখেছেন সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে শাফিন বলেন, বিকেল পর্যন্ত দেখে এ বিষয়ে আমি আমার মন্তব্য দেব।

শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে থাকছেন কি না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, হতাশ হওয়ার সময় এখনও আসেনি। দেখা যাক শেষ পর্যন্ত। আজকে ছুটির দিন ভোটাররা আস্তে ধীরে বের হচ্ছে।

জানা গেছে, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র পদে উপনির্বাচনে পাঁচজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। নৌকা প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আতিকুল ইসলাম, লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী মো. শাফিন আহমেদ, ঘড়ি প্রতীক নিয়ে মো. আব্দুর রহিম, আম প্রতীক নিয়ে আনিসুর রহমান দেওয়ান ও বাঘ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন শাহীন খান।

এর আগে সকাল ৯টায় উত্তরার নওয়াব হাবিবুল্লাহ মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ১২ নম্বর কেন্দ্রে ভোট প্রদান করেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম।

উল্লেখ্য, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র পদে উপনির্বাচন এবং উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের নতুন ৩৬টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর ও নারী কাউন্সিলর পদে নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলছে।

আজ (বৃহস্পতিবার) সকাল ৮টায় এই ভোটগ্রহণ শুরু হয়। চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

ইসি সূত্র জানায়, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটির এ নির্বাচনে মোট ৩২৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মেয়র পদপ্রার্থী ছাড়া উত্তরের সম্প্রসারিত ১৮টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১১৬ জন ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ৪৫ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

ইতোমধ্যে উত্তরের ৯ নম্বর ওয়ার্ডে একক প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন এবং ২১ নম্বর ওয়ার্ডে ৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। দক্ষিণ সিটির সম্প্রসারিত ১৮টি ওয়ার্ডের সাধারণ ওয়ার্ডে ১২৫ জন ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ২৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

ইসি আরও জানায়, উত্তর সিটির সাধারণ ওয়ার্ড ৫৪টি ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড ১৮টি, মোট ভোটকেন্দ্র এক হাজার ২৯৫টি এবং ভোটকক্ষ ৬ হাজার ৪৮২টি। এতে মোট ভোটার ৩০ লাখ ৩৫ হাজার ৬২১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৫ লাখ ৬৩ হাজার ৫৩০ জন এবং নারী ভোটার ১৪ লাখ ৭২ হাজার ৯১ জন।

ঢাকা উত্তর সিটির সম্প্রসারিত ১৮ ওয়ার্ডের মধ্যে ১৮টি সাধারণ ওয়ার্ড ও সংরক্ষিত ৬ ওয়ার্ডে মোট ভোটকেন্দ্র ২৪৩টি এবং ভোটকক্ষ এক হাজার ৪৭২টি। মোট ভোটার ৫ লাখ ৯০ হাজার ৭০৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ৯৮ হাজার ২৮৫ জন এবং নারী ভোটার ২ লাখ ৯২ হাজার ৪২০ জন।

ঢাকা দক্ষিণ সিটির সম্প্রসারিত ১৮টি ওয়ার্ডের মধ্যে সাধারণ ১৮টি ওয়ার্ড ও সংরক্ষিত ৬টি ওয়ার্ডে মোট ভোটকেন্দ্র ২৩৫টি এবং ভোটকক্ষ ১ হাজার ২৫২টি। মোট ভোটার ৪ লাখ ৯৬ হাজার ৭৩৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ৫৪ হাজার ৪৯৭ জন এবং নারী ভোটার ২ লাখ ৪২ হাজার ২৩৮ জন।

২৮.০২.২০১৯/ফাস্টনিউজ/এমআর/১৩.৪৫
ঢাকার খবর :: আরও খবর